কলকাতায় বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপন ও আন্তর্জাতিক স্মারকগ্রন্থ প্রকাশ


এইচ এম আমির হুসেন,করিমগঞ্জ ::
বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপন ও আন্তর্জাতিক স্মারকগ্রন্থ প্রকাশ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হলো কলকাতা প্রেসক্লাব, কফি হাউস এবং কলকাতা ইউনিভার্সিটি ইনস্টিটিউট অডিটোরিয়ামে। এই উদ্যোগ গ্রহণ করে নিখিল ভারত শিশুসাহিত্য সংসদ পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটি। বর্তমান রাজ্য কমিটি সিদ্ধান্ত নেয় বাংলা ভাষা চর্চা ও মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখার অন্যতম ব্যক্তিত্ব শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীন বাংলাদেশের রূপকার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক দুনিয়ায় সম্মানিত। এই বাংলা থেকে তাঁর প্রতি আমরা শ্রদ্ধা জানাবো। অনুষ্ঠানে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের আমন্ত্রিত এবং বাংলাদেশের প্রায় ৩৫ জন কবি সাহিত্যিক উপস্থিত ছিলেন। মুল মঞ্চে দুই দেশের জাতীয় সংগীত এবং নজরুলের কারার ঐ লৌহ কপাট সংগীত ৩২ জন শিল্পী সমবেতভাবে পরিবেশন করেন। আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন পবিত্র সরকার, গঙ্গার জল এবং রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাক (বঙ্গবন্ধু নামকরণ প্রণেতা) পদ্মার পানি এবং অভ্রদীপ পাল, আনসারুল হক গোলাপ পাপড়ি দিয়ে জল পাত্রে অর্পণ করে সূচনা করেন। উপস্থিত ছিলেন একুশে পদকপ্রাপ্ত অসীম সাহা, মোফাখখারুল ইকবাল(ফার্স্ট সেক্রেটারি, বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন) পার্থজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় ড.বীথিকা চৌধুরী, পঙ্কজ সাহা, সৈয়দ হাসমত জালাল, ড.আব্দুর রব প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ দেন সর্বভারতীয় সম্পাদক আনসারুল হক।
উল্লেখ্য, শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম ১৭ মার্চ ১৯২০, শহিদ ১৫ আগস্ট ১৯৭৫। তাঁর জীবন সংগ্রামের সাথে আজকের বাংলাদেশ বাংলা ভাষা স্বতন্ত্র ভাবে জড়িয়ে আছে। পবিত্র সরকার বলেন হাজার বছরের সেরা বাঙালি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু। বক্তারা একে একে তাঁর বিপ্লবী ব্যক্তি স্বত্তা দর্শন তুলে ধরেন। ড. দেবরায় বলেন, ত্রিপুরা আগরতলার সাথে বঙ্গবন্ধুর হৃদয় জড়িয়ে রয়েছে। প্রথম পর্বে সঞ্চালক ছিলেন ধীশংকর সেনগুপ্ত। মঞ্চে প্রকাশিত হয় আন্তর্জাতিক স্মারক গ্ৰন্থ এবং দিলীপ পাল সম্পাদিত ছোটদের ‌ছোট গল্প ‘শব্দসেনা’ নামের পুস্তক। প্রায় দুই শতাধিক শিল্পী কবি সাহিত্যিক মঞ্চে অংশগ্রহণ করেন। শেষে যুগ্ম সম্পাদক বরুণ চক্রবর্তী সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করার পর অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়। বরাক উপত্যকা সর্বধর্ম সমন্বয় সভা’র কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আমির হুসেন এক প্রেসবার্তায় এখবর জানিয়েছেন।